Loading...
You are here:  Home  >  সিলেট সংবাদ  >  Current Article

আরিফ-কামরানের শোডাউন

Arif Kamran
সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী বদরউদ্দিন আহমদ কামরান ও বিএনপির প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী । দলবল নিয়ে তারা সিলেট সিটি করপোরেশনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আলিমুজ্জামানের কাছে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এ সময় দুইজনের সঙ্গেই ছিলেন বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী। এদিকে মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন দুই মেয়র প্রার্থী। এদিকে বিকালে মহানগর বিএনপির সভাপতি বদরুজ্জামান সেলিম স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। বুধবার মনোনয়ন দাখিল করেছিলেন জামায়াতের প্রার্থী অ্যাডভোকেট মাহবুব জুবায়ের।
সকাল থেকে উৎসবমুখর পরিবেশে সিলেটের মেন্দীবাগস্থ নির্বাচনী কার্যালয়ে প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র জমা দেয়া শুরু করেন। বেলা পৌনে ১২টায় মনোনয়নপত্র জমা দিতে যান আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। তিনি পৌঁছানোর আগে সেখানে পৌঁছেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ ও জাতিসংঘ মিশনের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি ড. একে আব্দুল মোমেন ও সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান সহ নেতাকর্মীরা। এরপর সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদকে সঙ্গে নিয়ে সেখানে পৌঁছান বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। তিনি গার্ডেন টাওয়ারের সামনে পৌঁছামাত্র বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী নৌকা-নৌকা বলে স্লোগান দেন। এদিকে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে পৌঁছে বদরউদ্দিন আহমদ কামরান দলীয় নেতাদের সঙ্গে নিয়ে রিটার্নিং অফিসারের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন। পরে বেরিয়ে এসে তিনি সাংবাদিকদের কাছে তার প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সিলেটে ঐক্যবদ্ধ। আমাদের মধ্যে কোনো ভেদাভেদ নেই। সিলেট আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধভাবে নির্বাচনে ঝাঁপিয়ে পড়ে বিজয় সুনিশ্চিত করবে।’ তিনি বলেন, সিলেট পবিত্র এলাকা। এখানকার মানুষ সামাজিকতাকে প্রাধান্য দেয় বেশি। সিলেটের সামাজিক অবস্থাকে আরো সৃদৃঢ় করতে তিনি কাজ করবেন বলে জানিয়েছেন। কামরান এ সময় সমালোচনা করেন আরিফেরও। বলেন, সরকার বিগত ৫ বছরে আরিফকে উন্নয়নের জন্য প্রচুর টাকা দিয়েছেন। কিন্তু ওই টাকা সঠিকভাবে প্রয়োগ করা হয়নি। এতে নগরবাসীরই ক্ষতি হয়েছে বলে জানান তিনি। মনোনয়নপত্র জমাকালে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাসুক উদ্দিন আহমদ, আশফাক আহমদ, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, যুগ্ম সহ-সাধারণ সম্পাদক বিজিত চৌধুরী, অ্যাডভোকেট নাছির উদ্দিন খান, কেন্দ্রীয় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও যুবলীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট বেলাল হোসাইন, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সদস্য সচিব ফজলুল হক আতিকসহ সিলেট আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। মনোনয়নপত্র জমা দিতে যাওয়ার পূর্বে মানিক পীর (রহ.) গোরস্থানে নিজের বাবা-মা’র মাজার জিয়ারত করেন কামরান।

বিকালে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার আগে দুপুরে সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র পদ থেকে পদত্যাগ করেন আরিফুল হক চৌধুরী। তিনি নগর ভবনে গিয়ে মতবিনিময়ের মাধ্যমে নির্বাচন করার ঘোষণা দিয়ে পদত্যাগ করেন। সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এজেডএম নুরুল হক মানবজমিনকে জানিয়েছেন, ‘আরিফুল হক চৌধুরী তার পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। সেটি আমরা পরবর্তী করণীয়’র জন্য মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করেছি। পরবর্তী কার্যক্রম মন্ত্রণালয় গ্রহণ করবে’। বিএনপির মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী জোহরের নামাজের পর জিয়ারত করেন ওলিকুল শিরোমণি হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার। সেখানে দোয়ার পর তিনি নিজ বাসা কুমারপাড়ায় যান। সেখানে মায়ের দোয়া নিয়ে তিনি মনোনয়নপত্র দাখিল করতে বিকাল ৪টার দিকে যান মেন্দিবাগস্থ নির্বাচনী কর্মকর্তার কার্যালয়ে। এ সময় তার সঙ্গে সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের শামীম, মহানগর সভাপতি নাসিম হোসাইন, অ্যাডভোকেট নুরুল হক, ডা. শাহরিয়ার আহমদ চৌধুরী, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ সহ সিনিয়র নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। আরিফুল হক চৌধুরী রিটার্নিং অফিসারের কাছে দলীয় নেতাদের সঙ্গে নিয়েই মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এ সময় তার সঙ্গে বিএনপির বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। এদিকে মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে বেরিয়ে এসে আরিফুল হক চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, ওলি-আউলিয়ার দেশ সিলেট। এখানে কোনো অন্যায় বরদাশত করা হয় না। এজন্য সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করতে তিনি নির্বাচনী কর্মকর্তাদের সহায়তা কামনা করেন। সবার জন্য একই ভাবে নির্বাচনী আচরণে নির্বাচন কমিশনকে আরো সক্রিয় হওয়ার আহ্বান জানান তিনি। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আরিফ বলেন, তিনি ৫ জন নিয়ে এসে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। অন্যরা তার সঙ্গে এখানে আসেননি।
মোট প্রার্থী ৯ জন: সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নির্বাচনে ৯ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে রয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী বদরউদ্দিন আহমদ কামরান, বিএনপির আরিফুল হক চৌধুরী, স্বতন্ত্র প্রার্থী মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম, স্বতন্ত্র প্রার্থী সিলেট মহানগর জামায়াতের আমীর এহসানুল মাহবুব জুবায়ের, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী ডা. মো. মোয়াজ্জেম হোসেন খান, বাসদের প্রার্থী মো. আবু জাফর, স্বতন্ত্র এহসানুল হক তাহের, মুক্তাদির হোসেন তাপাদার ও কাজী জসিম উদ্দিন।

    Print       Email

You might also like...

Sylhet-1-3

উন্নয়ন ও পরিবর্তনের অপেক্ষায় নগরবাসী -এডভোকেট জুবায়ের

Read More →