Loading...
You are here:  Home  >  আমেরিকা  >  Current Article

উত্তর কোরিয়া শান্তি চায়: ট্রাম্প

F738081F-0000-460E-85C2-EFD1B72C485F
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, উত্তর কোরিয়া শান্তি চায় বলেই তার ধারণা।
ট্রাম্প ও উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উনের মধ্যে সম্ভাব্য একটি বৈঠকের ঘোষণা দেয়ার পর তিনি দেশটির প্রশংসা করেন।
ট্রাম্প পেনসিলভানিয়ায় তার সমর্থকদের একটি সমাবেশে বলেন, ‘আমি মনে করি তারা শান্তি চায়। এটাই শান্তি প্রতিষ্ঠার উপযুক্ত সময়।’
খবর এএফপি’র।
ট্রাম্প আরো বলেন, ‘আমি মনে করি আমরা আমাদের শক্তি প্রদর্শণ করেছি। আমি মনে করি এটাও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।’
এর আগে বহুবার উত্তর কোরিয়াকে সন্ত্রাসের পৃষ্ঠপোষক বলে ঘোষণা করছিল মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পিয়ংইয়ংয়ের বিরুদ্ধে অনেক আগেই কঠোর হওয়া দরকার ছিল বলেও মন্তব্য করেছিলেন তিনি।
ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদন থেকে এ খবর জানা গিয়েছিল।
প্রতিবেদনে বলা হয়, মন্ত্রিসভার বৈঠকে উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে বড় ধরনের নিষেধাজ্ঞা আরোপের আভাস দিয়েছেন ট্রাম্প। তবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন জানিয়েছিলেন, বাস্তবে এর প্রয়োগ কম হতে পারে।
এর আগে ২০০৮ সালে উত্তর কোরিয়াকে সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষকের তালিকা থেকে বাদ দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র। দীর্ঘ ৯ বছর পর আবারো কিম জং উনের দেশকে ওই তালিকায় যুক্ত করল আমেরিকা।
মন্ত্রিসভার এক বৈঠকে উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক কর্মসূচির নিন্দা করে ট্রাম্প বলেছিলেন, এটি আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ।
তিনি বলেন, দেশটির শাসন ব্যবস্থা আইনসম্মতভাবে কাজ করবে এবং তারা পরমাণু অস্ত্রের কার্যক্রম বন্ধ করবে। গত সপ্তাহে এশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এই সিদ্ধান্ত নিলেন।

যে অস্ত্র আপনি সংগ্রহ করছেন সেটা আপনাকে নিরাপদ করছে না: কিমকে ট্রাম্প
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প উত্তর কোরিয়াকে কঠিন ভাষায় সতর্ক করেছেন। দক্ষিণ কোরিয়ার সংসদে বক্তৃতা দেয়ার সময় উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন ‘আমাদেরকে অবমূল্যায়ন করো না, আমাদের ঘাঁটিয়ো না।’
তিনি উত্তর কোরিয়াকে তার ভাষায় ‘ডার্ক ফ্যান্টাসি’র’ নিন্দা করেন। খবর বিবিসির।
ট্রাম্প এসময় কিমকে উদ্দেশ্য করে বলেন ‘যে অস্ত্র আপনি সংগ্রহ করছেন সেটা আপনাকে নিরাপদ করছে না।’ অন্যান্য দেশের প্রতি তিনি আহ্বান জানান পিয়ংইয়ং এর বিরুদ্ধে এক হওয়ার জন্য। মার্কিন প্রেসিডেন্ট এখন দক্ষিণ কোরিয়াতে রয়েছেন। তিনি এশিয়ার পাঁচটি দেশ সফর করবেন।
ট্রাম্পের পুরো সফরে পিয়ংইয়ং এর নিউক্লিয়ার অস্ত্রের বিষয়টি আলোচনায় প্রাধান্য পাবে বলে পর্যবেক্ষকরা বলছেন। গত কয়েক বছরে জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে পিয়ংইয়ং ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করে আসছে। গত সেপ্টেম্বরে দেশটি ছয় নম্বর এবং সবচেয়ে বড় নিউক্লিয়ার পরীক্ষা চালায়।
কিমের উদ্দেশ্যে ট্রাম্পের অপ্রত্যাশিত মন্তব্য
দক্ষিণ কোরিয়ার সংসদে যখন তিনি বক্তৃতা দিচ্ছিলেন তখন অপ্রত্যাশিত ভাবে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম কে লক্ষ্য করে সরাসরি মন্তব্য করতে থাকেন। মন্তব্য গুলো ব্যক্তিগত বলেই উল্লেখ করছেন পর্যবেক্ষকরা কারণ এই ধরণের আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে ট্রাম্পের এই মন্তব্যে অনেকেই অবাক হয়েছেন।
ট্রাম্প সরাসরি কিমকে লক্ষ্য করে বলেন ‘আপনি নিউক্লিয়ার কর্মসূচী এবং অস্ত্র তৈরি পরিত্যাগ করুন। এসব আপনার শাসনব্যবস্থাকে গভীর বিপদের মধ্যে ফেলে দিচ্ছে’ বলে তিনি সতর্ক করে।
উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক কর্মকাণ্ড ঘিরে দুটি দেশের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরেই উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় চলছে।পিয়ংইয়ং বলেছে, তারা সম্প্রতি একটি ছোট আকারের হাইড্রোজেন বোমা সফলভাবে পরীক্ষা করেছে এবং সেটি দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রে যুক্ত করা সম্ভব।
প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এর আগে বলেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় স্বার্থ এবং ঐ অঞ্চলে তাদের মিত্রদের রক্ষা করতে যুক্তরাষ্ট্র উত্তর কোরিয়াকে ধ্বংস করে দিতে পারে।

    Print       Email

You might also like...

2D5D723F-3327-443B-A229-AAB0D9177CEC

এরদোগানের বিশাল বিজয় : নতুন যুগে তুরস্ক

Read More →