Loading...
You are here:  Home  >  এশিয়া  >  Current Article

কাশ্মীরের মুসলমানদের নিয়ে আপত্তিকর টুইট: চাকরি গেল মার্কিন কোম্পানির ভারতীয় কর্মীর

১

একটি মার্কিন বহুজাতিক কোম্পানির এক ভারতীয় কর্মী খুবই আপত্তিকর এবং বিদ্বেষপূর্ণ ভাষায় পোস্ট করা কিছু টুইটে কাশ্মীরি মুসলমানদের হত্যা এবং ধর্ষণে সমর্থন এবং উস্কানি দেয়ার পর তার চাকরি গেছে।

আশীষ কাউল নামের এই ভারতীয় কাজ করতেন মার্কিন বহুজাতিক কোম্পানি ডেডেভলপমেন্ট ডাইমেনশন্স ইন্টারন্যাশনাল নামের একটি মার্কিন বহুজাতিক কোম্পানিতে। তিনি নিজেও কাশ্মীরী।

কাশ্মীরি মুসলমানদের বিরুদ্ধে তার পোস্ট করা তীব্র ঘৃণা এবং বিদ্বেষপূর্ণ কয়েকটি টুইট নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোচনা চলছিল।

আশীষ কাউল একটি টুইটে লিখেছিলেন, “কাশ্মীরি মুসলমানদের অর্থনৈতিকভাবে হত্যা করা দরকার, যাতে তারা মুখের খাবার জোগানোর জন্য নিজেদের স্ত্রী-কন্যাদের দিল্লি, মুম্বাই বা চেন্নাইতে বিক্রি করতে বাধ্য হয়!”

তার আরেকটি টু্‌ইট ছিল, “কাশ্মীরের নারীদের যখন রাস্তায় কাঁদতে দেখি, আমার ভালোই লাগে। আহা কত নিম্পাপ, নিরপরাধ! গত এক বছরের নিহতের তালিকা কি বলে? দু:খিত, গত ২৮ বছরের? হা হা হা—স্বাধীনতা বলে আওয়াজ দাও!”

আশীষ কাউলের এসব টুইট নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া হয়। যে মার্কিন বহুজাতিক কোম্পানিতে তিনি কাজ করেন, সেই ডিডিআই’র দৃষ্টি আকর্ষণ করে এ নিয়ে টুইট করেন কয়েকজন। এরপরই ডিডিআই তাদের কর্মী আশীষ কাউলকে বরখাস্ত করে।

ডিডিআই এক বিবৃতিতে বলেছে, বিষয়টি তাদের নজরে আনার সঙ্গে সঙ্গে তারা ব্যবস্থা নিয়েছে। বিবৃতিতে তারা বলেছে, “এসব পোস্ট দেখে আমরা স্তম্ভিত এবং ক্ষুব্ধ। এসব কথাবার্তা আমাদের মিশন এবং মূল্যবোধের সম্পূর্ণ লংঘন। যখনই আমরা এই বিষয়ে জানতে পেরেছি, আমরা সাথে সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মীকে বরখাস্ত করেছি এবং পুরো বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছি। গত ১২ই মে আমরা তার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছি। পোস্টে এই ব্যক্তি যেসব মন্তব্য করেছেন সেসব তার ব্যক্তিগত মত, এবং এগুলো ডিডিআই এর মূল্যবোধ প্রতিফলন করে না।”

    Print       Email

You might also like...

194031afghan

রেশমি কোরআন শরীফ!

Read More →