Loading...
You are here:  Home  >  অর্থ ও বাণিজ্য  >  Current Article

ছুটির দিনে বাণিজ্যমেলা ক্রেতা-বিক্রেতার মিলন মেলায় পরিণত

Melaসপ্তাহিক ছুটির দিনে ক্রেতা-দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখরিত ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। হিমেল হাওয়া আর মিষ্টি রোদে বেলা বাড়ার সঙ্গে বাড়তে থাকে মানুষের ভিড়। বাণিজ্যমেলা যেন ক্রেতা-বিক্রেতার মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে। এবার মেলায় নতুন সংযোজন হলো সেলফি। সেলফি নেশায় আসক্ত আমাদের তরুণ-তরুণিরা। মেলায় কেনা কাটার চেয়ে সেলফিতে বেশি ব্যস্ত ক্রেতা-দর্শনার্থীরা। মেলায় সেলফি তোলার সুবর্ণ সুযোগ করে দিয়েছে ওয়ালটন সেলফি কর্নার।
গতকাল ছিল বাণিজ্যমেলার তৃতীয় শুক্রবার। সপ্তাহিক ছুটির দিনে ক্রেতা-দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখরিত ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। সকাল থেকেই মেলায় দর্শনার্থীর ভিড় ছিল চোখে পড়ার মত। বিকেলে ২ টার পরে মেলাগামী রাস্তাগুলো তীব্র যানজট তৈরি হয়। এদিকে মিরপুর-১০ থেকে মেলা পর্যন্ত তীব্র যানজট ছিল। অন্যদিকে ফার্মগেইট থেকে আগাঁরগাও পর্যন্ত ছিল বিশাল যানজট। মানুষ বাধ্য হয়ে পায়ে হেটেই মেলায় যেতে বাধ্য হয়েছে।
গতকাল শুক্রবার বাণিজ্য মেলা ঘুরে দেখা যায়, সকাল থেকেই দর্শনার্থী বাড়তে থাকে বাণিজ্য মেলায়। কেউ সপরিবারে, কেউ বন্ধু-বান্ধবী, স্কুল-কলেজের সহপাঠীদের নিয়ে দল বেঁধে মেলায় এসেছেন। এদের একটি অংশ মেলায় ঘুরতে আসলেও বেশিরভাগই ব্যস্ত কেনাকাটায়।
এদিকে মেলায় ক্রেতাদের বেশি অগ্রহ দেখা গেছে গৃহস্থালি বিভিন্ন পণ্যের প্রতি। প্লাস্টিক পণ্যের পাশাপাশি রয়েছে প্রেসার কুকার, জুস মেকার, জুস ব্লেন্ডার, ওভেন, রাইস কুকার, ইস্ত্রি, ইন্ডাকশন চুলা, ফ্যানসহ নানা ধরণের ইলেক্ট্রনিক ও গৃহস্থালি পণ্য। মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে ক্রেতা-বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য জানা গেছে।
মেলায় রিগ্যাল ফার্নিচার এর ম্যানেজার মো. আতিকুর রহমান বলেন, কমমূল্যে ভালোমানের আসবাব নিয়ে এসেছে রিগ্যাল। প্রায় শতাধিক মডেলের আসবাব মেলায় প্রদর্শন করা হয়েছে। মেলার দিন যতই যাচ্ছে আমাদের ক্রেতা-দর্শনার্থীদের সংখ্যা বাড়ছে। বিক্রিও ভালো হচ্ছে। তবে মেলার অংশগ্রহণের মূল উদ্দেশ্য দেশের মানুষের কাছে রিগ্যালের পণ্যের পরিচয় করিয়ে দেয়া। মেলায় ক্রেতাদের সম্মানে ১০ শতাংশ বিশেষ ছাড় দেয়া হচ্ছে একই সঙ্গে ফ্রি হোম ডেলিভারির সুবিধা। আজ ছুটির দিন দর্শনার্থীর সংখ্যা অনেক বেশি। তাই অর্ডারও ভালো হয়েছে বলে জানান তিনি।
রাজধানীর খিলগাঁও থেকে মেলায় আসা তানিয়া ইসলাম বলেন, মেলায় হরেক রকমের পণ্য পাওয়া যায় বলে প্রতি বছরই মেলার অপেক্ষায় থাকি। শুক্রবার ছুটির দিন। বিকালে বেশি ভিড় হয় তাই সকালেই এসেছি। মেলা থেকে একটি রাইস কুকার ও ঘরে ব্যবহারের জন্য প্লাস্টিকের বিভিন্ন সামগ্রি কিনলাম। ঘুরছি পছন্দ হলে আরো কিছু কিনবো।
বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটন প্যাভিলিয়নের বিক্রয়কর্মী বলেন, ওয়ালটন ব্র্যান্ডের আয়রন, ওয়াশিং মেশিন, কফি মেকার, ইলেকট্রিক ও মাইক্রোওয়েব ওভেন, এয়ার ফ্রায়ার, হেয়ার স্ট্রেইটনার, ইলেকট্রিক প্রেসার কুকার, ইলেকট্রিক লাঞ্চ বক্সসহ প্রায় ২০টি হোম এপ্লায়েন্স।
তিনি বলেন, নতুন বছর ও দেশের সর্ববৃহৎ বাণিজ্য মেলা উপলক্ষে বিভিন্ন প্রকারের হোম এপ্লায়েন্সের দাম সর্বোচ্চ ৩ হাজার টাকা পর্যন্ত কমানো হয়েছে। পাশাপাশি, বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটনের মেগা প্যাভিলিয়নে আগত ক্রেতা-দর্শণার্থীদের বাড়তি কিছু উপহার দিতে হোম এপ্লায়েন্সে দেয়া হচ্ছে পাঁচ শতাংশ বিশেষ ছাড়।
মেলা ঘুরে দেখা গেছে, কেনা কানা রেখে অনেকেই ব্যস্ত রয়েছে সেলফি তুলতে। একটু ভাল ব্যাকগ্রাউন্ড, ভাল জায়গা পেলে বা দৃষ্টি নন্দন দৃশ্য হলে তো কথাই নেই। নিজে কিংবা প্রিয়জনের সঙ্গে সেই মুহূর্তটা স্মৃতি করে রাখতে ফ্রেমবন্দী হতে দেরি করেন না সেলফি আসক্তরা।
বিশেষ করে, উঠতি বয়সী তরুণ-তরুণীরা সেলফিতে বেশি আসক্ত। বাড়তি বিনোদন আর স্মৃতি ধরে রাখার বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে এবারের ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় ওয়ালটন করেছে সেলফি কর্ণার। ক্রেতা-দর্শনার্থীদের বিনোদনে সঙ্গী হতে একমাত্র ওয়ালটনই করেছে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর আকর্ষণীয় এ সেলফি কর্ণার।
দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটন প্রতি বছরই মেলায় আসে ভিন্ন সাজে। পণ্যের মধ্যেও থাকে নতুনত্ব। এ ধারাবাহিকতায় এবারের ২২তম মেলায় ওয়ালটন গড়ে তুলেছে দৃষ্টি নন্দন প্যাভেলিয়ন। দেখলে যে কেউ একটু ঢুঁ মারতে চাইবেন। তাছাড়া প্রথমবারের মতো সেলফি কর্ণার নির্মাণ করে মেলার শুরুতেই চমক দেখিয়েছে শীর্ষস্থানীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটন। দেশীয় এ প্যাভেলিয়নের পণ্য প্রদর্শন আর বিক্রয়কর্মীর উপস্থাপন মুগ্ধ করছে ক্রেতা-দর্শনার্থীদের।
মেলা ঘুরে দেখা গেছে, বাণিজ্য মেলার প্রধান প্রবেশদ্বার দিয়ে ঢুকেই মূল টাওয়ারের পাশেই নির্মাণ করা হয়েছে দেশীয় প্রতিষ্ঠান ওয়ালটনের প্রদর্শনী কেন্দ্রটি। প্রতিবারের মতো এবারো দৃষ্টিনন্দন প্যাভিলিয়ন নির্মাণ করে চমক সৃষ্টি করেছে ওয়ালটন। বিশাল জায়গা নিয়ে তৈরি হয়েছে অপূর্ব স্থাপত্য শৈলীর দৃষ্টিনন্দন তিনতলা মেগা প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন। প্যাভিলিয়নে প্রবেশ ফটকের বাইরে হাতের বাম পাশে লিফটের কাছে করা হয়েছে ওয়ালটন সেলফি কর্ণার। প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত সেলফিপ্রেমীদের পদচারণায় মুখর থাকে ওয়ালটন সেলফি কর্ণার। শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণী, মধ্যবয়সী এমনকি বৃদ্ধদেরও সেলফি তুলতে দেখা যায়। কারও সঙ্গে স্ত্রী, কারও সঙ্গে প্রেমিকা, কেউ কেউ বন্ধুদের সঙ্গে আবার কেউ কেউ বাবা-মা ও স্বজনদের সঙ্গে সেলফি তুলছেন। রীতিমতো লাইন ধরে দাঁড়াতে হচ্ছে। সেলফির তোলার আনন্দ থেকে বঞ্চিত হননি বিদেশীরাও। ওয়ালটনের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর (পিআর এন্ড মিডিয়া) হুমায়ূন কবীর বলেন, মানুষ এখন এতোই কর্মচঞ্চল যে ব্যস্ততার কারণে হাসতে ভুলে গেছে। আমরা মনে করি যিনি খুব বেশি হাসেন তার মনটা খুব ভাল থাকে। চিকিৎসকরাও বলেন, হাসলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়ে যায়। যান্ত্রিকতার এই ইট-কাঠ-পাথরে ঘেরা ঢাকা শহরে চিত্তবিনোদনের বড়ই অভাব। ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা হচ্ছে একটি মিলনমেলা। এই মিলনমেলায় সত্যিকার অর্থে ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের সামান্যতম হলেও বিনোদন দিতে ওয়ালটন সেলফি কর্ণার অগ্রণী ভূমিকা রাখছে। ক্রেতা-দর্শনার্থীদের বিনোদনে ভিন্ন মাত্রা যোগ করার বিষয়টি মাথায় রেখেই ওয়ালটন সেলফি কর্ণার করা হয়েছে বলে তিনি জানান। তাছাড়া নতুন বছরের শুরুতে মেলায় আগত ক্রেতা-দর্শণার্থীদের নতুন কিছু উপহার দিতেই ওয়ালটনের এই বিশেষ উদ্যোগ।
বাণিজ্যমেলায় সরেজমিন ঘুরে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের সেলফিতে মজে থাকতে দেখা যায়। মেলায় এসে স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছেলে-মেয়েরা যেমন সেলফি তুলছেন, পিছিয়ে নেই বয়স্করাও। বাণিজ্যমেলায় সেলফি উৎসব কেউ মেলায় প্রবেশের আগে, কেউ ভেতরে প্রবেশ করেই, কেউ ছোটদের খেলনার কাছে, কেউ আইসক্রিম খেতে খেতে, কেউ সেলফি তুলছেন কোন প্রিয় জিনিস কেনার সময় প্রিয় মানুষদের সঙ্গে।
ওয়ালটনের ইন্টেরিয়র ডিজাইন বিভাগের এসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার শাদী মোহাম্মদ রুম্মান জানান, মোবাইলে সেলফি একটি নতুন ট্রেন্ড। এর প্রতি কম বেশি সবাই আকর্ষণ বোধ করে। বিষয়টি মাথায় রেখে ওয়ালটন স্পেশাল সেলফি কর্নারের ব্যবস্থা করেছে।
উল্লেখ্য, ১ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এ মেলা চলবে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত। ১৩ লাখ ৭৩ হাজার বর্গফুট আয়তনের এবারের মেলাস্থল। মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। এবারের মেলায় প্রবেশমূল্য ধরা হয়েছে (পূর্ববর্তী তিন বছরের মতো) প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য জনপ্রতি ৩০ টাকা এবং অপ্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য জনপ্রতি ২০ টাকা।

    Print       Email

You might also like...

Mufti-news-bg20171122232853

Read More →