Loading...
You are here:  Home  >  সিলেট সংবাদ  >  Current Article

প্রতিটি জেলায় ফররুখ একাডেমী স্থাপন করতে হবে ॥ কবি আল মুজাহিদী

ফররুখ আহমদ১

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে সিলেটে কবি ফররুখ আহমদের জন্মশতবর্ষ উদযাপন করা হয়েছে। শনিবার সাহিত্য-সংস্কৃতি অঙ্গনের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে অত্যন্ত আনন্দঘন পরিবেশ এই আয়োজন ছিল উপভোগ করার মত। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাধীনতা ও একুশে পদক প্রাপ্ত, বীর মুক্তিযোদ্ধা কবি আল মুজাহিদী বলেন, ফররুখ বাংলা সাহিত্যে অমর এবং অনন্য। বিশ্বজনীন আদর্শবাদকে উজ্জীবিত করে এমন সাহিত্য তিনি রচনা করে গেছেন। নির্দিষ্ট সীমারেখাহীন আদর্শবাদের চেতনায় বিশ্বাসী ফররুখকে বেশি বেশি করে চর্চা করতে হবে, জানতে হবে। তিনি দেশে প্রতিটি জেলায় ফররুখ একাডেমী স্থাপন করার আহবান জানান।

ফররুখ আহমদ৪

সিলেট নগরীর দরগাহ গেইটস্থ কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের শহীদ সুলেমান হলে কবি ফররুখ জন্মশতবর্ষ উদযাপন পরিষদ, সিলেট-এর উদ্যোগে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। পরিষদের আহবায়ক ভাষা সৈনিক অধ্যক্ষ মাসউদ খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- কবি ফররুখপুত্র বিশিষ্ট সাংবাদিক আহমদ আখতার এবং মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন কথাসাহিত্যিক কবি সোলায়মান আহসান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কবি আল মুজাহিদী বলেন, আমাদের অস্তিত্বকে রক্ষা করতে হবে। মুসলমানদের সোনালি ইতিহাস-ঐতিহ্যকে ধারণ করে ইস্পাত কঠিন ঐক্য নিয়ে সংগ্রাম এবং লড়াইয়ের মাধ্যমে অস্তিত্বকে রক্ষা করা সম্ভব। কবি ফররুখ আহমদ তাঁর সাহিত্যের মাধ্যমে মুসলমানদের মধ্যে রেনেসাঁর চেতনাকে সমুজ্জ্বল করার জন্য বুদ্ধিবৃত্তিক চেষ্টা করেছেন। মৌলিক কবি ফররুখ আহমদের সাহিত্য চর্চার মাধ্যমে মুসলমানরা তাদের ইতিহাস-ঐতিহ্যের সাথে পরিচয় লাভ করতে পারবেন বলে তিনি মনে করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ফররুখপুত্র সাংবাদিক আহমদ আখতার বলেন, কবি ফররুখ তাঁর সাহিত্যের মাধ্যমে একটি স্বতন্ত্র ধারার সৃষ্টি করেছেন। একটি প্যারালাল সংস্কৃতির চিন্তায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ফররুখ আহমদ পুঁথি সাহিত্যের মাধ্যমে বিশ্বজনীন আদর্শকে মুসলমানদের কাছে তুলে ধরেছেন। নৈতিক এবং মূল্যবোধের সাহিত্য চর্চায় কবি ফররুখ দিকপাল হিসেবে বেঁচে থাকবেন।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যক্ষ মাসউদ খান বলেন, ফররুখ আহমদ আমাদের চেতনার কবি। জাগরণের কবি। তাঁর সাহিত্যকে যতই চর্চা করবো, ততই আমরা সমৃদ্ধ হবো। বিশ^জনীন আদর্শকে অনুধাবণ করে সাহিত্য চর্চা উদ্বুদ্ধ হওয়ার মাধ্যমেই কবি ফররুখের সত্যিকার মূল্যায়ন সম্ভব।

শিশুসংগঠক আহমদ মাহবুব ফেরদৌসের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিষদের সদস্য সচিব, সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সময়২৪ এর প্রধান সম্পাদক মুকতাবিস-উন-নূর। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন যুগ্ম আহবায়ক অধ্যক্ষ কবি কালাম আজাদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট মুজিবুর রহমান চৌধুরী, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) জুবায়ের সিদ্দিকী, প্রবীণ সাংবাদিক আফতাব চৌধুরী, লে. কর্নেল (অব.) সৈয়দ আলী আহমদ, মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ লে. কর্নেল (অব.) প্রফেসর ছয়ফুল কবীর চৌধুরী, সিলেটের ডাকের নির্বাহী সম্পাদক গবেষক আব্দুল হামিদ মানিক, ডা. মাশুকুর রহমান প্রমুখথ।

অনুষ্ঠানে কবি ফররুখ আহমদ জন্মশতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে চারটি প্রস্তাবনা পেশ করা হয়। প্রস্তাবনা উপস্থাপন করেন কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সহ-সভাপতি সেলিম আউয়াল। অনুষ্ঠানে কবি ফররুখ আহমদের জীবন ও সাহিত্য নিয়ে নির্মিত ডকুমেন্টারী প্রকাশ করা হয় এবং তাঁকে মূল্যায়ন করে রচিত গ্রন্থের প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। প্রদর্শনী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন ফররুখপুত্র আহমদ আখতার।

সিলেটে কবি ফররুখ আহমদের সাহিত্য গবেষণায় অবদান রাখার জন্য উদযাপন পরিষদের পক্ষ থেকে সিলেটের চারজন কবিকে কবি ফররুখ জন্মশতবর্ষ সাহিত্য পদক প্রদান করা হয়। তাদের মধ্যে প্রফেসর কবি আফজাল চৌধুরী (মরণোত্তর), কবি রাগিব হোসেন চৌধুরী, কবি মুকুল চৌধুরী এবং কবি মুসা আল হাফিজ। পদকপ্রাপ্তদের মধ্যে অনুভূতি ব্যক্ত করেন কবি মুকুল চৌধুরী ও কবি মুসা আল হাফিজ। অনুষ্ঠানের অতিথিবৃন্দ পদকপ্রাপ্তদের হাতে প্রশংসাপত্র ও সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন।

ফররুখ আহমদ৮

ফররুখ জন্মশতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী করা হয়। এর মধ্যে রচনা প্রতিযোগিতায় ‘ক’ গ্রুপে প্রথম তাসনিম ইফরিন খান, দ্বিতীয় নাঈম আহমদ সুহাদ, তৃতীয় জহিরুল ইসলাম অভি, ‘খ’ গ্রুপে প্রথম মো. আব্দুল বাছিত, দ্বিতীয় জান্নাতুল মাওয়া আঞ্জুলী, তৃতীয় সানজানা হাকিম স্মৃতি, কবিতা আবৃত্তিতে ‘ক’ গ্রুপে প্রথম মাহফজা মাহজাবিন, দ্বিতীয় নামিরা সাদেক পিয়া, তৃতীয় যৌথভাবে মালিহা মারিয়াম ও নাফিসা জান্নাত চৌধুরী, ‘খ’ গ্রুপে প্রথম সামিরা সাদেক লিয়া, দ্বিতীয় রাইসা জান্নাত চৌধুরী, তৃতীয় মাতৃবা রহমান, কুইজ প্রতিযোগিতায় ‘ক’ গ্রুপে প্রথম আনাস বিন এনাম, দ্বিতীয় ইব্রাহিম মো. তাওসিফ, তৃতীয় শাহ মো. নাজমুস সাকিব, ‘খ’ গ্রুপে প্রথম মাইশা হোসেন চৌধুরী, দ্বিতীয় সুমাইয়া ফেরদৌস হিযবা, তৃতীয় জায়ারা আফরিন চৌধুরী। অনুষ্ঠানের অতিথিবৃন্দ পুরস্কারপ্রাপ্তদের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট, সার্টিফিকেট ও পুরস্কার তুলে দেন।

ফররুখ আহমদ৭

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন সোলায়মান আল মাহমুদ, হামদ পরিবেশন করেন হিফজুর রহমান, তাসফিয়া জাহান তাহিয়া, কবি ফররুখের কবিতা আবৃত্তি করেন হাদিউল নাহিয়ান চৌধুরী। অনুষ্ঠানের শেষে একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে কবি ফররুখ আহমদের রচিত হামদ, নাত এবং জাগরণমূলক সংগীত পরিবেশন করেন সিলেট থিয়েটার মঞ্চের শিল্পীবৃন্দ। অনুষ্ঠানে সিলেটের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

IMG_4564

    Print       Email

You might also like...

Sylhet-1-3

উন্নয়ন ও পরিবর্তনের অপেক্ষায় নগরবাসী -এডভোকেট জুবায়ের

Read More →