Loading...
You are here:  Home  >  মধ্যপ্রাচ্য  >  Current Article

ফের আল আকসা মসজিদ অবমাননা, ইউসুফ (আ) এর কবরে হামলা

328102_191

আল আকসা মসজিদে সম্প্রতি ইহুদিদের অনুপ্রবেশ এবং এর প্রতি সমর্থন জানিয়ে মার্কিন নতুন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের উদ্যোগ সংবাদ মাধ্যমগুলোর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। সম্প্রতি ইসরাইলের পুলিশের সহযোগিতায় অভিবাসী ইহুদিরা নতুন করে আল আকসা মসজিদে প্রবেশ করে বিভিন্ন স্থানে অবাধে ঘুরে বেড়িয়েছে।

অবৈধ ইহুদি অভিবাসীরা প্রায় প্রতিদিনই আল আকসায় প্রবেশ করে এর অবমাননা করছে। জেরুসালেমের ইসলামি পরিচিতি ধ্বংস করার জন্য এবং ওই এলাকার জনসংখ্যার কাঠামো ইহুদিদের অনুকূলে আনার জন্য আল আকসা মসজিদ ও এর আশেপাশের এলাকাকে ইহুদিবসতি ও সামরিক এলাকায় পরিণত করেছে ইসরাইল।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতার আসার পর ফিলিস্তিন পরিস্থিতির দিকে তাকালে দেখা যাবে আমেরিকার সর্বাত্মক সমর্থন নিয়ে ইসরাইল বেপরোয়া হয়ে উঠেছে এবং মধ্যপ্রাচ্যে সম্প্রসারণকামী লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য আরো দ্বিগুণ উৎসাহে ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে হত্যা নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে। মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোকে মার্কিন আধিপত্যকামী নীতি মেনে নিতে বাধ্য করার জন্য ইসরাইল ও আমেরিকা যৌথভাবে তাদের নানা পরিকল্পনা বাস্তবায়নের চেষ্টা করছে।

মধ্যপ্রাচ্যে আধিপত্য বিস্তার এবং ইসরাইলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য আমেরিকা যে পরিকল্পনা এঁটেছে তা বাস্তবায়িত হলে বায়তুল মোকাদ্দাস ফিলিস্তিনিদের হাতছাড়া হয়ে যাবে। এই ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে ইসরাইলের অবস্থান আরো শক্তিশালী করার জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাদের দূতাবাস তেলআবিব থেকে জেরুসালেমে স্থানান্তর করেন।

ট্রাম্পের এ পদক্ষেপ ফিলিস্তিনসহ সমগ্র মধ্যপ্রাচ্যে সংবাদ ও রাজনৈতিক মহলে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া হয়েছে। তাদের মতে, এ পদক্ষেপ থেকে ফিলিস্তিন, আরব ও ইসলামি পরিচিতি ধ্বংসের জন্য ইসরাইল যে চেষ্টা চালাচ্ছে তার প্রতি মার্কিন সমর্থনের প্রমাণ পাওয়া যায়। আল আকসা মসজিদ নিয়ে ইসরাইল যা করছে তা ইসলামের এই পবিত্র স্থানের প্রতি প্রকাশ্য অবমাননা। এ কারণে জেরুসালেমের ব্যাপারে মার্কিন ষড়যন্ত্র ও পরিকল্পনার প্রতিবাদ জানিয়েছে এ অঞ্চলের জনগণসহ বিভিন্ন মহল।

ইসরাইল বর্তমানে জেরুসালেমকে পুরোপুরি ইহুদিকরণের মাধ্যমে ওই এলাকাকে রাজধানীতে পরিণত করার চেষ্টা চালাচ্ছে। জেরুসালেম ও আল আকসা মসজিদ কখনই উগ্র ইহুদিবাদীদের হাত থেকে নিরাপদ থাকেনি এবং ঐতিহাসিক এই স্থাপনা ক্ষতির মাধ্যমে ইসরাইল তার লক্ষ্য বাস্তবায়নের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

অন্যদিকে ইসরাইলি সেনাদের সহযোগিতায় ইহুদি উপশহরের শত শত অধিবাসী মঙ্গলবার হযরত ইউসুফ (আ) এর মাজারে হামলা চালিয়েছে। জর্দান নদীর পশ্চিম তীরের নাবলুস শহরে ইসরাইলীরা মঙ্গলবার সকালে ওই হামলা চালায়। ফিলিস্তিনের তথ্য কেন্দ্র আরো জানিয়েছে, ইসরাইলি সেনা এবং ইহুদি অধিবাসীদের মোকাবেলায় ফিলিস্তিনি যুবকেরা রুখে দাঁড়ালে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়।

ইসরাইলি সেনারা কাঁদানে গ্যাস এবং বুলেট নিক্ষেপ করলে অন্ত ৫০ ফিলিস্তিনি আহত হয় এবং বহু ফিলিস্তিনির শ্বাসরুদ্ধকর অবস্থা সৃষ্টি হয়। সংঘর্ষ চলাকালে বহু ফিলিস্তিনীকে ইসরাইলের সেনারা ধরে নিয়ে যায়।

ফিলিস্তিনকে ইহুদিবাদী চেহারা দেয়ার জন্য নিরলস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরাইল। সেই লক্ষ্যে তারা ইসলামি নিদর্শন, বাড়িঘর, মসজিদসহ বিচিত্র ঐতিহাসিক স্থাপনা ধ্বংস করে সেখানে ইহুদি উপাসনালয় নির্মাণ করে যাচ্ছে। ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ এর আগেও বিশ্বের বিভিন্ন সংস্থার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে তারা যেন অধিকৃত ফিলিস্তিনের ইসলামি নিদর্শন ধ্বংস করা বন্ধ করতে ইসরাইলের ওপর চাপ সৃষ্টি করে।

ফিলিস্তিনের ওয়াকফ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে ২০১৭ সালে ইসরাইল অন্তত ১২১০ বার ইসলামি ও খ্রিষ্টানদের ধর্মীয় স্থাপনায় আক্রমণ করেছে।

    Print       Email

You might also like...

333955_114

‘আমাদের বাঁচতে দিন’

Read More →