Loading...
You are here:  Home  >  দেশ জুড়ে  >  Current Article

ফের চাপে জামায়াত, শীর্ষ নেতৃত্বে আসছেন কারা?

800ffd267f3a15c056ae2df7888f8962-59dbc8dc43fac
ফের চাপের মুখে পড়লো বিরোধী রাজনৈতিক দল জামায়াতে ইসলামী। অধ্যাপক গোলাম আযম, মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী ও আলী আহসান মুহাম্মদ মুজাহিদের ধারাবাহিকতায় প্রায় সাত বছর পর একসঙ্গে আটক হলেন দলটির আমির মকবুল আহমাদ, নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার ও সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানসহ ৬ শীর্ষ নেতা। এর আগে ২৯ সেপ্টেম্বর দলটির আরও আট নেতাকে আটক করে পুলিশ। এর মধ্য দিয়ে মাত্র ১০ দিনে জামায়াতের প্রথম সারির প্রায় সব নেতাকেই আটক করা হলো। এতে দ্বিতীয় দফায় নেতৃত্বের সংকটের মুখে পড়লো জামায়াত। এই ঘটনায় নতুন চিন্তা যুক্ত হলো দলে। দলটির নেতাকর্মীদের মধ্যে এখন মূল প্রশ্ন— কারা আসছেন দলের এসব গুরুত্বপূর্ণ পদে ভারপ্রাপ্ত হয়ে? সোমবার মধ্যরাতে জামায়াতের বিভিন্ন স্তরের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে এসব বিষয় উঠে এসেছে।

জামায়াতের আমির, নায়েবে আমির, সেক্রেটারি জেনারেলসহ ছয় নেতা আটক হন সোমবার রাতে। এছাড়া দলটির সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানের সহযোগী নজরুল ইসলাম, তার বাড়ির মালিক ও একজন দারোয়ানকেও আটক করা হয়। রাজধানীর উত্তরার একটি বাড়ি থেকে সরকারের প্রভাবশালী কয়েকটি গোয়েন্দা সংস্থা তাদের আটক করে ডিবির হাতে হস্তান্তর করে।

এর আগে ২০১০ সালের ২৯ জুনে একদিনে একসঙ্গে গ্রেফতার হয়েছিলেন মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে ফাঁসিতে দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত আমির মতিউর রহমান নিজামী, সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মুহাম্মদ মুজাহিদ ও যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত নায়েবে আমির দেলওয়ার হোসাইন সাঈদী। নিজামী-মুজাহিদের গ্রেফতারের পর ভারপ্রাপ্ত হিসেবে আমিরের দায়িত্ব পান মকবুল আহমাদ। ওই সময় ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি মনোনীত হন এটিএম আজহারুল ইসলাম। ২০১২ সালে ২২ আগস্ট তাকে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়। এরপর ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারির দায়িত্বে আসেন সিলেটের প্রভাবশালী নেতা ডা. শফিকুর রহমান। মকবুল আহমাদ সাড়ে ছয় বছর এবং শফিকুর রহমান ৫ বছর এ দায়িত্ব পালন করেন। গত বছরের ১৭ অক্টোবর মকবুল আহমাদ আমির নির্বাচিত হন।

সাতকানিয়ার দ্বন্দ্ব মেটাতে গিয়ে আটক হলেন জামায়াতের শীর্ষ নেতারা

জামায়াতের নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, শীর্ষ নেতাদের একসঙ্গে আটকের পেছনে সরকারের অন্য কোনও উদ্দেশ্য থাকলেও এই পরিকল্পনা সফল হয়েছে ভিন্ন কারণে। সোমবার রাতে উত্তরার একটি বাসায় আগামী নির্বাচনে চট্টগ্রামের সাতকানিয়া থেকে দলীয় মনোনয়ন কে পাবেন, এ নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা ছিল। পূর্বনির্ধারিত সময় অনুযায়ী কেন্দ্রীয় নেতারা ওই বাসায় একসঙ্গে হলেও বেঁচে গেছেন দুই নেতা। যাদের কেন্দ্র করে বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

সূত্র জানায়, সাতকানিয়া আসন থেকে এমপি হয়েছেন শাহজাহান চৌধুরী ও নায়েবে আমির আ ন ম শামসুল ইসলাম দু’জনই। কিন্তু আগামী নির্বাচনে কে প্রার্থী হবেন, এ নিয়ে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ও মহানগর নেতাদের মধ্যে আলোচনার জন্য দলের আমির মকবুল আহমাদ ও সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমান ও মিয়া গোলাম পরওয়ার চট্টগ্রামের শীর্ষ নেতাদের ডেকেছিলেন। এই ডাকে সাড়া দিয়ে চট্টগ্রামের তিন নেতা বৈঠকস্থলে পৌঁছলেও শাহজাহান চৌধুরী ও শামসুল ইসলাম দেরি করে ফেলেন। এরই মধ্যে গোয়েন্দারা তাদের অবস্থান চিহ্নিত করে।

সরকারের প্রভাবশালী দু’টি গোয়েন্দাসংস্থার নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, বিগত এক মাসের বেশি সময় ধরেই জামায়াত নেতাদের গ্রেফতারে তৎপরতা শুরু হয়। কিন্তু একইসঙ্গে এতজন কেন্দ্রীয় নেতাদের পেয়ে যাবেন, এটি তারা ভাবেননি।

সূত্রটি জানায়, চট্টগ্রাম থেকেই গোয়েন্দাসূত্র জানায়, শহরের গুরুত্বপূর্ণ নেতারা ঢাকায় আসছেন। এরই মধ্যে আটক করার সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করে সংস্থাগুলো। জামায়াতের শীর্ষ নেতাদের গ্রেফতারে সরকারের তিনটি গোয়েন্দা সংস্থা একযোগে কাজ করে।

সূত্রগুলো জানায়, আটককৃতদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধেই বিভিন্ন সময় মামলা করা হয়েছে। খুব দ্রুতই তাদের সে সব মামলায় গ্রেফতার দেখানো হবে। এরই মধ্যে আমির মকবুল আহমাদের বিরুদ্ধে একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধে নতুন করেও মামলা হতে পারে। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থার প্রতিনিধিরা ইতোমধ্যে তার জেলা ফেনীতে গিয়েছেন দুই দফা।

আটকের বিষয়ে সোমবার রাতে তাৎক্ষণিক বিবৃতিতে দলের সিনিয়র নায়েবে আমির অধ্যাপক মুজিবুর রহমান অভিযোগ করেন, ‘আজ সন্ধ্যায় দলের আমিরের নেতৃত্বে ঘরোয়া বৈঠকের সময় পুলিশ অন্যায়ভাবে দলের আমিরসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের আটক করে।’

প্রথম সারির আরও যারা আটক

গত ২৯ সেপ্টেম্বর পুলিশের হাতে আটক হন জামায়াতের প্রথম সারির চার নেতাসহ ৯ জন। তাদের মধ্যে কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখার আমির নূরুল ইসলাম বুলবুল, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের নায়েবে আমির মঞ্জুরুল ইসলাম ভূঁইয়া, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ ও কেন্দ্রীয় মসজলিসে শুরার সদস্য আবদুস সবুর ফকির, বাংলাদেশ মসজিদ মিশনের সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা ড. খলিলুর রহমান মাদানী, ইসলামী ব্যাংকের কর্মকর্তা মাওলানা ফরিদুল ইসলাম উল্লেখযোগ্য।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর ও সোমবার (৯ অক্টোবর) জামায়াতের প্রথম সারির বেশিরভাগ নেতাকে আটকের মধ্য দিয়ে আবারও নেতৃত্বের সংকটে উপনীত হলো। বরাবরই জামায়াত অভিযোগ করে আসছে, সরকার নেতৃত্বের সংকট তৈরি করতেই তাদের গ্রেফতার করে। কেন্দ্রীয় নেতারা ছাড়াও সারাদেশে জামায়াতের প্রায় কয়েকশ আটক হয়েছে। তাদের মধ্যে কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরা, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্যসহ বিভিন্ন জেলার আমির ও সেক্রেটারি রয়েছেন।

জামায়াতের নেতাদের আটক-গ্রেফতার নতুন কোনও বিষয় নয় বলে মনে করেন, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ডা. রিদওয়ানুল্লাহ শাহেদি। তিনি বলেন, ‘আটক-গ্রেফতার, রিমান্ড তো জামায়াতের জন্য নতুন নয়। অভ্যন্তরীণভাবে দল আগের চেয়ে অনেক বেশি সংগঠিত।’

ফেনী জেলা আমির একে এম শামসুদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘দ্বীনের পথে চলতে গেলে জেল-জুলুম স্বাভাবিক, এতে কষ্ট হলেও মন ভাঙার কিছু নেই। জামায়াতের ওপর এ সরকারের আচরণ বরাবরের মতো ধারাবাহিক। আটক-গ্রেফতার নতুন কিছু নয়।’

কারা আসছেন ভারপ্রাপ্ত হয়ে?

মাত্র এক বছরের ব্যবধানে ফের ভারপ্রাপ্ত নেতৃত্বের মুখে পড়লো জামায়াত। গত বছরের ১৭ অক্টোবর আমির হিসেবে শপথ নেওয়ার পর নতুন কমিটি মনোনয়ন দিয়েছিলেন আমির মকবুল আহমাদ। কিন্তু তার নেতৃত্বে নতুন কমিটি আসার একবছরের মধ্যে তাকে আটক করা হলো।

সূত্র জানায়, নিয়ম অনুযায়ী কেন্দ্রীয় নেতাদের আটকের পর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ জরুরি বৈঠক করবে। সর্বোচ্চ-সংখ্যক সদস্যের অভিমতের ভিত্তিতে খুব দ্রুত ভারপ্রাপ্ত আমির ও ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি ঠিক করবে এই পরিষদ।

দায়িত্বশীলদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ‘ভারপ্রাপ্ত আমির হিসেবে সিনিয়র নায়েবে আমির অধ্যাপক মুজিবুর রহমান দায়িত্ব পেতে পারেন। আর ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি হিসেবে নির্বাহী পরিষদ সদস্য রফিকুল ইসলাম খান হতে পারেন। নির্বাহী পরিষদের বৈঠকে সহকারি সেক্রেটারি জেনারেল এটিএম মাসুম বা আবদুল্লাহ মুহাম্মদ তাহেরকে বেছে নেওয়া হতে পারে। এছাড়া হামিদুর রহমান আজাদও আছেন। সিনিয়রিটির দিক থেকে ব্যারিস্টার আবদুর রাজ্জাক থাকলেও তিনি লন্ডনে অবস্থান করছেন দীর্ঘদিন ধরেই।

    Print       Email

You might also like...

22688052_10214745634705144_3690002423813215227_n

ঢাকার সাংবাদিক উৎপল দাসের খোঁজ মিলছে না

Read More →