Loading...
You are here:  Home  >  দেশ জুড়ে  >  Current Article

বাংলাদেশে রেলসেতুসহ চার প্রকল্পের উদ্বোধনে হাসিনা-মোদি

v-bg20171108230541
ভারতের অর্থায়নে ‍ঋণ সহায়তায় বাস্তবায়ন হওয়া দুটি প্রকল্পসহ বৃহস্পতিবার(৯ নভেম্বর) মোট চার প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দ্বিতীয় ভৈরব ও দ্বিতীয় তিতাস রেল সেতুর উদ্বোধন করবেন। এরপর মৈত্রী এক্সপ্রেসের ঢাকা-কলকাতা কাস্টম ইমিগ্রেশন স্টেশন ও বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেন উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।

রেলের মহাপরিচালক (ডিজি) আমজাদ হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী যৌথভাবে বৃহস্পতিবার চারটি প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন।

মেত্রী এক্সপ্রেসে এখন থেকে কেবল ঢাকা ও কলকাতায় কাস্টমস ইমিগ্রেশন হবে জানিয়ে তিনি বলেন, মাঝপথে (সীমান্তে) ইমিগ্রেশনের কারণে গন্তব্যে পৌঁছতে সময় বেশি লাগতো। ঢাকা-কলকাতায় ইমিগ্রেশন হলে যাত্রার সময় আড়াই ঘণ্টা কমে আসবে। শুক্রবার (১০ নভেম্বর) থেকে চালু ঘোষণা দেবেন দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী।

ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে দ্বিতীয় ভৈরব ও দ্বিতীয় তিতাস সেতু চালু হলে ১৫ মিনিট সময় কমে আসবে জানিয়ে প্রকল্প পরিচালক ও রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক মো.আবদুল হাই বলেন, ডাবল লাইনে ক্রসিং ছাড়াই ট্রেন চলাচলের পাশাপাশি পণ্য পরিবহনের সময় ও ভোগান্তি কমবে।

প্রকল্প পরিচালক জানান, মেঘনা নদীর উপর দ্বিতীয় ভৈরব রেলওয়ে সেতু প্রকল্পে মোট ৯টি সেতু ও প্রায় ৮ কিলোমিটার এপ্রোচ রেলপথ নির্মাণ করা হয়েছে। এরমধ্যে ২৬ নম্বর ভৈরব ব্রিজের আগে ২৪, ২৫, ২৫-এ এবং পরে ২৭, ২৮, ২৯ নম্বর সেতুর সঙ্গে ৩ দশমিক ৮ কিলোমিটার এপ্রোচ রেলপথ নির্মাণ করা হয়েছে। এক নম্বর তিতাস রেল সেতুর সঙ্গে ১-এ সহ মোট দুটি সেতু ও ৩ দশমিক ৫ কিলোমিটার এপ্রোচ রেলপথ নির্মাণ করা হয়।

আবদুল হাই বলেন, রেলওয়ে এপ্রোচসহ ৭৫৮ কোটি টাকা ব্যয়ে সেতু দুটি নির্মাণ করা হয়েছে। এরমধ্যে ১১২ দশমিক ৯ মিলিয়ন ভারতের ঋণ সহায়তা।২০১০ সালের ৯ নভেম্বর অনুষ্ঠিত একনেক সভায় প্রকল্পটির অনুমোদন দেওয়া হয়।

    Print       Email

You might also like...

b153bf52a5a6ec84fde109f504dd966f-5a117c754c9d8

কথা হলো কাদের-ফখরুলের

Read More →