Loading...
You are here:  Home  >  ইউকে  >  Current Article

ব্রিটেনে ই-সিগারেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা তিনগুণ বৃদ্ধি

E-cigarateসময়২৪: ব্রিটেনে ই-সিগারেট পানকারীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিগত ২০১০ সাল থেকে এ পর্যন্ত ই-ধূমপায়ীর সংখ্যা তিনগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।
সচেতন মহল, এটাকে ইতিবাচক বরে মনে করছেন। কারণ অনেক ধূমপায়ী ধূমপান ত্যাগের জন্য ই-সিগারেট পানের দিকে ঝুঁকছেন।
দেখা গেছ, ব্রিটেনে গত দু’বছরে ই-সিগারেট অর্থাৎ ইলেক্ট্রনিক ব্যবহারকারীর সংখ্যা তিনগুণ বেড়েছে। বর্তমানে এদের সংখ্যা ২১ লাখ। একটি স্বাস্থ্য দাতব্য সংস্থার পরিসংখ্যান থেকে এ তথ্য জানা গেছে। দাতব্য সংস্থাটি জানায়, বর্তমান ও সাবেক ধূমপায়ীদের অর্ধেকেরও বেশী এখন ইলেক্ট্রনিক সিগারেট পানের চেষ্টা করছেন। একটি আলাদা সমীক্ষায় দেখা গেছে, অধিকাংশ ই-সিগারেট ব্যবহারকারীরা ধূমপান ত্যাগের জন্য ই-সিগারেট ব্যবহার করছেন। অ্যাকশন অন স্মোকিং এন্ড হেলথ্ (অ্যাশ)-এর সিইও ডেবোরাহ আরনট বলেন, যারা ইলেক্ট্রনিক সিগারেট ব্যবহার করছেন তাদের মধ্যে সম্ভবত: ৭ লাখ প্রাক্তন ধূমপায়ী এবং ১৩ লাখ স্বাভাবিক সিগারেট বা তামাক সেবনের পাশাপাশি ই-সিগারেট ব্যবহার করছেন।
চলতি বছর নিয়মিত সিগারেট পায়ীর সংখ্যা শতকরা ১৭.৭ ভাগ বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১০ সালে এই বৃদ্ধির হার ছিলো ২.৭ ভাগ।
কেনো ই-সিগারেট ব্যবহার করছেন, এ প্রশ্ন করা হলে শতকরা ৭১ ভাগ প্রাক্তন ধূমপায়ী বলেন যে, তারা ধূমপান ত্যাগ করতে চান। শতকরা ৪৮ ভাগের বক্তব্য হলো, তারা ধূমপানে তামাকের ব্যবহার হ্রাস করতে ই-সিগারেট পান করছেন এবং শতকরা ৩৭ ভাগ বরেন, অর্থ বাঁচাতে তারা ই-সিগারেট ব্যবহার করছেন।
ডেবোরাহ বলেন, গত ৪ বছর যাবৎ ইলেক্ট্রনিক সিগারেটের ব্যবহার নাটকীয়ভাবে বৃদ্ধির পেছনে যে কারণটি বিদ্যমান তা হচ্ছে, ধূমপায়ীরা সেই সব যন্ত্রের দিকে ঝুঁকছেন, যা তাদেরকে ধূমপান ত্যাগে সাহায্য করবে।
অপরদিকে অধূমপায়ীদের মধ্যে এর ব্যবহার নগণ্য।  ‘দ্য স্মোকিং টুলকিট স্টার্ডি’  নামক অপর এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, ব্রিটেনে এতোদিন যাবৎ সিগারেটের বিকল্প বা ধূমপান ত্যাগে ব্যবহৃত নিকোটিন জাত প্যাচ ও গাম ব্যবহারও হ্রাস পেয়েছে। এর স্থান দখল করেছে ই-সিগারেট। সংশ্লিষ্ট মহলের মতে, ই-সিগারেট এখনো বেসিক বা প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে, এই  প্রযুক্তির উন্নয়নে আরো কয়েক বছর লেগে যাবে।

    Print       Email

You might also like...

6afed405318d4219e5ce1f58be1a4401-5a1580a4a4885

২৭ নভেম্বর লন্ডনে কারি শিল্পের ‘অস্কার’

Read More →