Loading...
You are here:  Home  >  এক্সক্লুসিভ  >  Current Article

মৌলভীবাজারের পর্যটনস্পটগুলো পর্যটকের মুখরিত

Binoবৃষ্টি উপেক্ষা করে ঈদের ছুটিতে মৌলভীবাজার জেলার পর্যটনখ্যাত এলাকার দশর্নীয় স্থানগুলোতে দেশী-বিদেশী পর্যটকের আগমন ঘটেছে। বিশেষ করে জেলার আকর্ষণীয় পর্যটন স্পট এশিয়ার বৃহত্তম হাওর হাকালুকি, বড়লেখার মাধবকুন্ড জলপ্রপাত, মৌলভীবাজার বর্ষিজোড়া ইকো পার্ক, কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান, হাম হাম জলপ্রপাত ও মাধবপুর লেইক, কুলাউড়ার মড়ইছড়া ইকোপার্ক, গগন টিলা, রংগিলকুল ইকোপার্ক ও চা বাগান, শ্রীমঙ্গলের বাইক্কাবিল, গ্র্যান্ড সুলতান টি রির্সোট এন্ড গলফ, একাত্তরের বধ্যভূমি ও সিতেশ দেবের চিড়িয়াখানাসহ বিভিন্ন পর্যটন স্পটগুলোতে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে পর্যটকরা ছুটে আসেন। কিন্তু ঈদের দিন থেকে সোমবার পর্যন্ত বৃষ্টির ফলে দেশের দূর দূূরান্ত থেকে আসা পর্যটকরা অনেক দূর্ভোগের মধ্যে পড়েন। এর পরও ঈদের ছুটিতে মৌলভীবাজারের পর্যটন এলাকাগুলোতে পর্যটকদের উপস্থিতি ছিল লক্ষ্ণণীয়।
এদিকে ঈদে আসা পর্যটকদের নিরাপত্তায় দুই স্তরের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে ট্যুরিষ্ট পুলিশের পক্ষ থেকে।
শ্রীমঙ্গল ইকো গেষ্ট হাউস মালিক শহীদুল হক জানান, ঈদের আগেই তারসহ জেলার বেশিরভাগ গেষ্ট হাউজের রুম বুকিং হয়েছে। জেলার মোটেল হোটেলগুলোতে যাতে প্রায় ১০ হাজার পর্যটক রয়েছে। তিনি বলেন, গত ঈদে রাজনৈতিক পরিস্থিতি প্রতিকুলে থাকায় ব্যাপক লোকসান হয়েছিল। এ বছর মোটামুটি পুষিয়ে লাভের মুখ দেখতে পারছেন ব্যবসায়ীরা।
ট্যুরিষ্ট পুলিশ জানিয়েছে, ঈদ এবং পর্যটকদের আগমনকে নির্বিঘ্ন করতে পোশাকধারী ট্যুরিষ্ট পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকে নিরাপত্তা দিচ্ছে ও পুরুষ পুলিশ সদস্য। তাছাড়া র‌্যাবের টহলও অব্যাহত আছে।
মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক মো. কামরুল হাসান জানান, পর্যটক হয়রানি এবং অতিরিক্ত মূল্য নেয়া বন্ধে হোটেল-মোটেল ও রেস্তোঁরায় মূল্য তালিকা টাঙানোর নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

    Print       Email

You might also like...

eueu

সব দলের অংশগ্রহণে স্বচ্ছ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন দেখতে চায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন

Read More →