Loading...
You are here:  Home  >  মধ্যপ্রাচ্য  >  Current Article

রাসায়নিক হামলায় সিরিয়ানদের মৃত্যুর ভয়ঙ্কর বর্ণনা

9E8021DD-E1E8-4E1F-9DDE-569F9D40699F

রাxসায়নিক গ্যাসের হামলায় সম্প্রতি সিরিয়ায় শিশুসহ ১৫০ জনের মতো মানুষের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। চারদিকে ছড়িয়ে থাকা লাশের ভয়ঙ্কর ছবিও ইন্টারনেটসহ আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যমে এসেছে। সিরিয়ানদের এমন মৃত্যু কতটা ভয়ঙ্কর, তার বর্ণনা উঠে এসেছে দেশটির স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাগুলোর তথ্য থেকে। খবর সিএনএন ওবিবিসির।
স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাগুলোর তথ্যমতে, সিরিয়ার দৌমায় ফেলে দেয়া হয় ক্লোরিন আর সারিন গ্যাসের একটি বোমা। এরপরই আশপাশে থাকা শিশুদের মুখে গ্যাঁজলা উঠতে শুরু করে। নার্ভ সিস্টেমে এমনভাবে আক্রমণ হয় এই গ্যাসে, যার ফলে তাদের নিঃশ্বাস নেয়া অসম্ভব হয়ে ওঠে।
বিশেষজ্ঞদের দাবি, সায়নাইডের থেকে ২৬ গুণ বেশি মারাত্মক এই সারিন গ্যাস। তাদের ভাষ্য, ১৯৩৮-এ কীটনাশক থেকে তৈরি হয়েছিল এই বিষাক্ত সারিন গ্যাস। এটি যদি সামান্যও শরীরে প্রবেশ করে, তাহলে তা মারাত্মক প্রভাব ফেলতে শুরু করে। নাক দিয়ে পানি বেরোতে থাকে, বুকে চাপ লাগে। ধীরে ধীরে শুরু হয় বমি ও প্রস্রাব। শরীরের ওপর নিয়ন্ত্রণের শক্তি সম্পূর্ণভাবে হ্রাস পেতে শুরু করে। ক্রমে শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ হতে শুরু করে।
লন্ডনের কুইন মেরি ইউনিভার্সিটির প্রফেসর রোড ফ্লাওয়ার জানান, খুব তাড়াতাড়ি উবে যায় এই গ্যাস। তাই এই গ্যাসেই রাসায়নিক অস্ত্র বানানো হয়।
স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘হোয়াইট হেলমেট’ টুইট করে জানায়, সরকারি বাহিনীর এই রাসায়নিক হামলায় ৭০ জন নিহত হয়েছে। এর সংখ্যা বাড়তে পারে। তবে প্রথমে ৭০ জন নিহত হওয়ার বিষয়টি জানালেও পরে আবার সংখ্যা বাড়িয়ে ১৫০ জন নিহত হওয়ার তথ্য জানায় সংস্থাটি।
এদিকে সিরিয়ার সংবাদমাধ্যমে এ ধরনের হামলার কথা অস্বীকার করা হয়েছে। তারা মিথ্যা সংবাদ ছড়ানোর অভিযোগও এনেছে।
তবে রাসায়নিক হামলার অভিযোগের পর যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, তারা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন। রাসায়নিক হামলার ঘটনা যদি প্রমাণিত হয়, তবে এর জন্য রাশিয়াই দায়ী থাকবে।
উল্লেখ্য, গত ফেব্রুয়ারিতে হামলা চালিয়ে পূর্ব ঘৌটার প্রায় পুরোটাই দখল করে নেয় সিরিয়ার সরকারি বাহিনী। পরে দৌমায় গত শুক্রবার বিমান হামলা চালানো হয়। মানবাধিকার সংগঠন সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটসের দাবি, দৌমায় হামলায় ১১ জন নিহত হয়েছে। সেখানে সাধারণ অস্ত্রই ব্যবহার করা হয়েছে। ধোঁয়ায় অনেকে মারা যায়। এছাড়া ৭০ জনের মতো মানুষ শ্বাসকষ্টে ভুগছে।

    Print       Email

You might also like...

F5062038-0877-4F7E-BC18-346010771B82

জেদ্দা কনস্যুলেটে প্রবাসীদের ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়

Read More →