Loading...
You are here:  Home  >  ইউকে  >  Current Article

লন্ডনে আবারও পথচারীদের ওপর চলন্ত গাড়ি

যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডনের ফুটপাতে আবারও পথচারীদের ওপর চলন্ত গাড়ি উঠিয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। শনিবার ন্যাচরাল হিস্ট্রি মিউজিয়ামের বাইরের এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশের একজন মুখপাত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে এটি সন্ত্রাসী হামলা কিনা-সে ব্যাপারে এখনও কর্তৃপক্ষের তরফে কিছু বলা হয়নি। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।

মেট্রোপলিটন পুলিশের একজন মুখপাত্র মেইল অনলাইন’কে বলেন, ৭ অক্টোবর শনিবার সাউথ কিংস্টনের এক্সিবিশন এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশকে তলব করা হয়েছে। কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে রয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে, এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন পথচারী আহত হয়েছেন। লন্ডন অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসকে তলব করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ঘটনাস্থল থেকে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ওই সময়কার পরিস্থিতি এবং হামলাকারীর উদ্দেশ্য সম্পর্কে জানতে তদন্তকাজ পরিচালনা করা হচ্ছে। এ সম্পর্কে কারও জানা থাকলে ১০১ নাম্বারে জানানোর অনুরোধ করা হচ্ছে।

হামলার পর ন্যাচরাল হিস্ট্রি মিউজিয়াম-এর টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে বলা হয়, জাদুঘরের বাইরে একটি গুরুতর ঘটনা ঘটেছে।

টুইটারে দেওয়া পোস্টে হামলার একজন প্রত্যক্ষদর্শী লিখেছেন, ‘এইমাত্র লন্ডনে মানুষের ওপর গাড়ি চালিয়ে দেওয়ার সাক্ষী হলাম। আপনার বন্ধুদের কেউ যদি জাতীয় জাদুঘরের কাছাকাছি এলাকায় থাকেন, তাহলে নিরাপত্তার খাতিরে তাদের জানিয়ে দিন।

আরেকজন লিখেছেন, দৃশ্যত একজন ব্যক্তি হিস্ট্রি মিউজিয়াম এলাকায় মানুষদের খেয়ে ফেলছে।

চলতি বছরের ৩ জুন রাতে লন্ডন ব্রিজে পথচারীদের ওপর গাড়ি তুলে দিয়ে সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয়। ওই হামলার কিছুদিনের মাথায় আবারও উত্তর লন্ডনে একটি মসজিদের কাছে পথচারীদের ওপর দ্রুত গতির গাড়ি তুলে দেওয়ার ঘটনা ঘটে। উভয় হামলাতেই হতাহতের ঘটনা ঘটে। ফলে গাড়ি হামলা মোকাবিলায় উদ্যোগী হয় লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশ।

এসব হামলার পর গত সেপ্টেম্বরে ভিড়ের মধ্যে গাড়ি চালিয়ে সন্ত্রাসী হামলা মোকাবিলায় নতুন একটি কৌশল গ্রহণ করে স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড। এ কৌশল অনুযায়ী, বড় আয়োজনগুলোতে স্টিলের ‘স্পাইকড রোড ম্যাট’–এর ব্যবহার শুরু হয়েছে। রাস্তায় বিছানো এসব ম্যাটের স্টিলের তৈরি অগ্রভাগ বেশ তীক্ষ্ণ। ফলে এর ওপর দিয়ে যানবাহন চলাচল করতে পারে না। স্কটল্যান্ড ইয়ার্ডের পক্ষ থেকে এর ডাকনাম দেওয়া হয়েছে ‘টেলন’। সেন্ট্রাল লন্ডনের হোয়াইট হলে নৌবাহিনীর প্যারেড চলাকালে প্রথমবারের মতো সেখানকার সড়কে এটি ব্যবহার করা হয়। তবে শনিবারের ঘটনা সংক্ষিপ্ত সময়ের হওয়ায় সেখানে এমন তৎপরতা দৃশ্যমান হয়নি। আর এটি সন্ত্রাসী হামলা নাকি দুর্ঘটনা সেটিও এখনও পর্যন্ত নিশ্চিত নয়।

উল্লেখ্য, লন্ডন ছাড়াও সাম্প্রতিক সময়ে ইউরোপে গাড়ি হামলার ঘটনা বেড়ে গেছে। এসব হামলার অধিকাংশই চালানো হচ্ছে জনবহুল এলাকায়। গত আগস্টে স্পেনের কাতালোনিয়ার রাজধানী বার্সেলোনার ব্যস্ততম পর্যটন এলাকায় পথচারীদের ওপর কাভার্ড ভ্যান উঠিয়ে দেওয়া হয়। এতে অন্তত ১৩ জন নিহত এবং কমপক্ষে ১০০ জন আহত হন। ২০১৬ সালের ১৪ জুলাই ফ্রান্সের নিস শহরে ট্রাক হামলা নিহত হন অন্তত ৮৬ জন। একই ধরনের ঘটনা ঘটেছে জার্মানি, সুইডেন এবং ফ্রান্সেও। ফলে এ ধরনের হামলা মোকাবিলার কৌশল নির্ধারণে নড়েচড়ে বসে নিরাপত্তা সংস্থাগুলো।

    Print       Email

You might also like...

16de4047f1b00c740eca5a206a9f31dd-59eb5649c6e27

এনআরবি গ্লোবাল বিজনেস কনভেনশন ২০১৭-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান

Read More →