Loading...
You are here:  Home  >  আমেরিকা  >  Current Article

হ্যামট্রামিক নগরীতে নির্বাচন ৭ নভেম্বর প্রথম বাংলাদেশি মেয়র হবেন হাসান?

11e8865615d506505087a4f481a3fd10-59981f4324806
যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান রাজ্যের হ্যামট্রামিক নগরীতে এই প্রথমবারের মতো একজন প্রবাসী বাংলাদেশির মেয়র হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। ৮ আগস্ট নগরীর বাছাই পর্বের নির্বাচনে জয়লাভ করেছেন মোহাম্মদ হাসান। আগামী ৭ নভেম্বর মেয়র নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
মোহাম্মদ হাসান প্রথম আলোকে বলেন, হ্যামট্রামিক নগরীর মেয়র পদে নির্বাচিত হওয়ার মধ্য দিয়ে আমেরিকার কোনো নগরীতে প্রথম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মেয়র হওয়ার স্বপ্ন সফল করতে চান তিনি।
চট্টগ্রামের সন্তান মোহাম্মদ হাসান উচ্চশিক্ষার্থে আমেরিকায় আসেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নেওয়ার পর ডেট্রয়েট মার্সি ইউনিভার্সিটিতে প্রকৌশল বিষয়ে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করেন। আমেরিকার প্রতিষ্ঠিত একাধিক প্রতিষ্ঠানে উচ্চপদে কাজ করেছেন মোহাম্মদ হাসান। পাশাপাশি কমিউনিটিসহ মূলধারার রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। প্রতিষ্ঠা করেছেন হাসান অ্যান্ড সন্স নামে নিজের কোম্পানি।
১৯৯৬ সাল থেকে মিশিগানের ডেট্রয়েট ও হ্যামট্রামিক এলাকায় আফ্রিকান, বাংলাদেশি, বসনীয়, পোলিশ ও ইয়েমেনি অভিবাসীদের মধ্যে ব্যাপক কাজে জড়িয়ে পড়েন তিনি। বাংলাদেশি আমেরিকান ডেমোক্রেটিক ককাসের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন ছাড়াও তিনি বাংলাদেশি আমেরিকান ফরেন অ্যাফেয়ার্স কমিটির উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। বাংলাদেশি আমেরিকান কংগ্রেসের প্রেসিডেন্ট ছাড়াও মোহাম্মদ হাসান হ্যামট্রামিক নগরীর বেশ কিছু নাগরিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত। চট্টগ্রাম অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ছাড়াও মিশিগানে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ও সেক্রেটারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন হাসান। ২০০৯ সাল থেকে এখন পর্যন্ত তিনি হ্যামট্রামিক নগরীর নির্বাচিত কাউন্সিলম্যান। টানা সাত বছর ধরে নগরীতে শক্তিশালী জনপ্রতিনিধি হিসেবে তিনি ভূমিকা রেখে আসছেন। ২০১২ সালে মিশিগান রাজ্য সিনেটে তিনি শক্ত প্রার্থী ছিলেন।
চার পুত্রসন্তানের জনক মোহাম্মদ হাসান প্রাইমারি নির্বাচনে বিজয়ের পর নভেম্বরের নির্বাচনে বিজয় নিয়ে আশাবাদী। প্রাইমারিতে জয়ের জন্য তিনি হ্যামট্রামিকে বসবাসরত সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। একই সঙ্গে মেয়র পদে তাঁকে ভোট দেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন।

    Print       Email

You might also like...

b01c8e0fdd54d48c68ebf1085003cbb9-5a119ec59360d

নিউইয়র্কে বিতাড়নের খড়গে আরও এক বাংলাদেশি

Read More →